এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
শনিবার, 07 মে 2016 11:48

সোনিয়াকে গ্রেফতারের সাহস নেই মোদি সরকারের: কেজরিওয়াল

অরবিন্দ কেজরিওয়াল- নরেন্দ্র মোদি ও সোনিয়া গান্ধী অরবিন্দ কেজরিওয়াল- নরেন্দ্র মোদি ও সোনিয়া গান্ধী

অগস্টা ওয়েস্টল্যান্ড বা হেলিকপ্টার কিনতে ঘুষ কেলেঙ্কারি ইস্যুকে কেন্দ্র করে আজ দিল্লিতে আম আদমি পার্টি বা ‘আপ’-এর পক্ষ থেকে এক প্রতিবাদ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

ইতালির সংস্থা অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড থেকে ভিভিআইপিদের জন্য হেলিকপ্টার কিনতে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সাবেক ইউপিএ সরকারের আমলে সোনিয়া গান্ধী থেকে শুরু করে অন্যদের ঘুষ দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কংগ্রেস অবশ্য এই দাবিকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে।

 

আজ (শনিবার) সকালে এই ইস্যুতে বিজেপি এবং কংগ্রেসের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখায় আম আদমি পার্টি। এ সময় পুলিশ এবং বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। বিক্ষোভকারীরা প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন ঘেরাও করার ঘোষণা দেয়ায় ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

 

আজ দিল্লিতে আম আদমি পার্টির ধর্না মঞ্চে এক ব্যানার লাগিয়ে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলা হয়েছে, ‘মোদিজি, হেলিকপ্টার কেলেঙ্কারিতে সোনিয়াজিকে রক্ষা করছেন কেন?’

 

এর আগে অগস্টা ওয়েস্টল্যান্ড ইস্যুতে কংগ্রেস এবং বিজেপি ধর্না অবস্থান করায় ‘আপ’ নেতা এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল তাদের ‘ধর্না পার্টি’ বলে কটাক্ষ করেন। কংগ্রেস এবং বিজেপির প্রতিবাদ বিক্ষোভকে ‘নাটক’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

 

আজ বেলা ১১ টা নাগাদ দিল্লিতে ‘আপ’-এর বিক্ষোভ মঞ্চে উপস্থিত হন ‘আপ’ নেতা এবং মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তিনি বিজেপি এবং কংগ্রেসের মধ্যে আঁতাতের অভিযোগ করেন।

 

কেজরিওয়াল বলেন, ‘গত দুই বছরের মধ্যে অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড ইস্যুতে এনডিএ সরকার কোনো তদন্ত করেনি। যদিও ইতালি সরকার তদন্ত শেষ করেছে। মোদি সরকারের এমন হিম্মত নেই যে, সোনিয়া গান্ধীকে গ্রেফতার করে তদন্ত করবে। সোনিয়া গান্ধীকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এত ভয় পাওয়ার কী প্রয়োজন রয়েছে? যদি তদন্ত করারই থাকে তাহলে সোনিয়া গান্ধীকে গ্রেফতার করে দুই দিন জিজ্ঞাসাবাদ করলেই তো সত্য প্রকাশ্যে আসবে।’

 

কেজরিওয়াল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে ভুয়া ডিগ্রি দুর্নীতির অভিযোগ তোলেন। তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদির ডিগ্রি দুর্নীতি বাইরে বেরিয়ে পড়েছে। ওনার দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএ ডিগ্রি ভুয়া। প্রধানমন্ত্রী যদি ভুয়া ডিগ্রি নিয়ে কাজ করেন তাহলে মানুষ তা বরদাস্ত করবে না। এটা প্রতারণার বিষয়।’

 

ডিগ্রি ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী মানুষের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করুন বলেও মন্তব্য করেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল।#

 

এমএএইচ/এআর/৭

 

 

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন