এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
বুধবার, 19 নভেম্বর 2014 17:15

স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের প্রতি ইউরোপের সমর্থন দিন দিন বাড়ছে

১৯ নভেম্বর (রেডিও তেহরান): ইউরোপীয় দেশগুলো একের পর এক স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের প্রতি সমর্থন দিয়ে চলেছে। এবার স্পেনের সংসদ ও স্লোভেনিয়ার প্রেসিডেন্ট স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতি সমর্থন ঘোষণা করেছে। স্পেনের সংসদ সদস্যরা গতকাল ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের প্রতি সমর্থন জানানোর পর একই পদক্ষেপ নেয়ার জন্য দেশটির প্রেসিডেন্টের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

 

স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী খুসে ম্যানুয়েল এর আগে বলেছিলেন, খুব দ্রুত স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের পদক্ষেপ নেয়া উচিত যাতে মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনার অবসান ঘটে। স্লোভেনিয়ার প্রেসিডেন্ট বোরুত পাহোরও বলেছেন, তার দেশ ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের উদ্যোগের প্রতি সমর্থন জানাবেন। তিনি আরো বলেছেন, আন্তর্জাতিক সমাজের উচিত স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতি স্বীকৃতি দেয়ার বিষয়টি দ্রুততার সাথে করা উচিত।

 

ইসরাইল ও ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষের মধ্যকার আপোষ আলোচনা কয়েকবার ব্যর্থ হয়ে যাওয়ার পর ইউরোপীয় দেশগুলোর সরকার ভেতরে ও বাইরে ব্যাপক চাপের মুখে পড়ে এবং এ দেশগুলো একে একে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের প্রতি মৌখিক সমর্থন জানানো শুরু করে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে প্রথম দেশ হিসেবে সুইডিস সরকার গত মাসে এক তরফাভাবে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিলে ইহুদিবাদী ইসরাইল তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখায়। সুইডেনের পর ফ্রান্স ও  ব্রিটিশ পার্লামেন্টেরও বেশির ভাগ সদস্য স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দেয়ার পক্ষে মত দেয়।

 

ফ্রান্স সংসদে সোশালিস্ট দলের প্রতিনিধিরা ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দেয়ার জন্য দেশটির প্রেসিডেন্টের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। অন্যদিকে ব্রিটিশ সংসদে অনুষ্ঠিত ভোটাভুটিতে বেশিরভাগ সদস্যের রায় ফিলিস্তিনিদের পক্ষে যায়। এ ছাড়া, চেক প্রজাতন্ত্র, পোল্যান্ড, বুলগেরিস্তান, রোমানিয়া ও সাইপ্রাসের সংসদেরও বেশিরভাগ সদস্য ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

 

মার্কিন সূত্রগুলো জানিয়েছে, আমেরিকার মিত্র ইউরোপের কয়েকটি দেশ হুমকি দিয়ে বলেছেন,  ইসরাইল ও ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষের মধ্যকার আপোষ আলোচনা ফের শুরু করার জন্য যদি কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া না হয় তাহলে তারা এক তরফাভাবে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতি সমর্থন ঘোষণা করবে। বর্তমানে এ বিষয়টি ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রধান আলোচ্য বিষয়ে পরিণত হয়েছে। ফিলিস্তিন ইস্যুতে ইউরোপীয় দেশগুলো ঐক্যবদ্ধ অবস্থানে নেই। এ কারণে তারা এ ব্যাপারে স্বাধীন নীতি গ্রহণ করছে। কিন্তু ইসরাইল ও তার পাশ্চাত্যের ঘনিষ্ঠ মিত্ররা এ অবস্থাকে বিপদজনক বলে মনে করছে। কারণ স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতি ইউরোপীয় দেশগুলোর সমর্থন দিন বাড়ছে। এ কারণে ইহুদিবাদী লবিগুলো ফিলিস্তিনিদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে ইউরোপীয় দেশগুলোর সংসদের ভোটাভুটি ঠেকানোর চেষ্টা করছে।

 

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দেয়ার যে প্রবণতা ইউরোপে শুরু হয়েছে তা দখলদার ইসরাইলের জন্য মোটেও শুখকর নয়। এ কারণে তারা মধ্যপ্রাচ্যে নিজেদের শক্তিশালী অবস্থান ধরে রাখার পাশাপাশি আপোষ আলোচনা শুরু করার জন্য ফিলিস্তিনিদের ওপর প্রচণ্ড চাপ সৃষ্টি করে চলেছে।

 

তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, ইউরোপীয় দেশগুলো অনানুষ্ঠানিকভাবে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দেয়ায় তাতে তাদের নীতিতে মৌলিক কোনো পরিবর্তন আসবে না। তবে এটাকে একধাপ অগ্রগতি হিসেবে দেখছেন তারা। #

 

রেডিও তেহরান/আরএইচ/১৯

 

 

 

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন