এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
রবিবার, 26 এপ্রিল 2009 00:19

ইতিহাসে প্রতিদিন : ২৫ এপ্রিল

১৯৭১ সালের ২৫শে এপ্রিল ভিয়েতনামে সামরিক অভিযানের বিরোধীতা করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় দুই লক্ষ জনতা ওয়াশিংটনে ব্যাপক বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। ভিয়েতনামে মার্কিন সামরিক আগ্রাসনের বিরুদ্ধে এটিই ছিল সবচেয়ে বড় বিক্ষোভের ঘটনা। যুক্তরাষ্ট্র ১৯৬৪ সালে ভিয়েতনামে আগ্রাসন শুরু করে এবং এ লক্ষ্যে পাঁচ লক্ষ মার্কিন সৈন্য সেখানে পাঠানো হয়। রক্তক্ষয়ী ঐ যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের হাজার হাজার সৈন্য হতাহত হয়েছিল। যুদ্ধে উভয় পক্ষেরই ব্যাপক প্রাণহানী ঘটায় একদিকে মার্কিন জনগণ তাদের সন্তানদের ভিয়েতনামে পাঠানোর প্রচন্ড বিরোধীতা করে। অন্যদিকে যুদ্ধে একের পর এক পরাজয়ের ফলে অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক চাপের কারণে ওয়াশিংটন শেষ পর্যন্ত ১৯৭৫ সালে ভিয়েতনাম থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করতে বাধ্য হয়।

ফার্সী ১৩৫৯ সালের এই দিনে যুক্তরাষ্ট্র বিমান ও হেলিকপ্টারের সাহায্যে ইরানে প্রবেশ করে। ইরানে গুপ্তচর বৃত্তির দায়ে আটক মার্কিন নাগরিকদের উদ্ধারের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ঐ সামরিক অভিযান চালিয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্র সূক্ষ্ম পরিকল্পনা গ্রহণ, অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে এবং ব্যাপক অনুশীলনের পর ইরানের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় তাবাস মুরুভূমিতে ঐ অভিযান চালায়। কিন্তু হঠাৎ ধুলি ঝড়ের কবলে পড়ে তাদের সে অভিযান ব্যর্থ হয় এবং বেশ কয়েকটি হেলিকপ্টার ও বিমানে আগুন ধরে যায়। অনেক মার্কিন সৈন্য নিহত এবং অবশিষ্ট যারা জীবিত ছিল তারা পালিয়ে যায়। মার্কিন সৈন্যরা তাবাস মরুভূমিতে অবতীর্ণ হওয়ার পর হেলিকপ্টারে করে তেহরানে আসতে চেয়িছিল। কিন্তু মরু ঝড়ের কবলে পড়ে তাদের সমস্ত চেষ্টা ভেস্তে যায়। ইরানে স্পর্শকাতর মুহূর্তে এ ঘটনাকে আল্লাহর পক্ষ থেকে বিশেষ অনুগ্রহ হিসাবে দেখা হয়।

ফার্সী ১৩৭২ সালের এই দিনে পাকিস্তানের ফার্সী ভাষায় সুপন্ডিত খ্যাতনামা অধ্যাপক ড: মোহাম্মদ বাকের পরলোক গমন করেন। ফার্সী ভাষার প্রতি তার গভীর আগ্রহ ছিল। তিনি পাকিস্তানের পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফার্সী ভাষা ও সাহিত্যের উপর ডক্টরেট ডিগ্রী লাভ করেন। ইরানের মালেকুশ শাআরায়ে বাহার, ড: মোহাম্মদ মঈন, সাঈদ নাফিসির মত ইরানের প্রখ্যাত কবি, সাহিত্যিক ও লেখকের সাথে তার ঘনিষ্ঠতা ছিল। ডক্টর মোহাম্মদ বাকের বেশ কিছু মূল্যবান গ্রন্থ লিখেছেন। এর মধ্যে সাসানিয়দের ইতিহাস, ভারত উপমহাদেশে ফার্সী ভাষার বিস্তার এবং ফার্সীনামা তার উল্লেখযোগ্য কিছু গ্রন্থ।

হিজরী ৬৭৩ সালের এই দিনে খ্যাতনামা মুসলিম মোহাদ্দেস ও ইতিহাসবিদ মোহাম্মদ বিন আহমাদ যাহাবি জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি শামস উদ্দীন নামে বেশী পরিচিত। হাদিস সংগ্রহের ব্যাপারে তার ছিল গভীর আগ্রহ। এ লক্ষ্যে তিনি বিভিন্ন দেশ সফর করেন এবং তৎকালীন সময়ের বহু খ্যাতনামা আলেম ও মনীষীদের কাছ থেকে হাদিস সংগ্রহ করেন। তিনি ইসলামের ইতিহাসের বহু ঘটনা বিশেষ করে ইসলামের আবির্ভাবের শুরু থেকে হিজরী ৭০৪ সাল পর্যন্ত সময়ের বহু ঘটনা ইসলামের ইতিহাস নামক গ্রন্থে লিপিবদ্ধ করেন। জ্ঞানার্জনে আগ্রহী বহু মানুষ তার বিভিন্ন গ্রন্থ থেকে এখনও উপকৃত হচ্ছে। তার আরো কিছু উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলোর মধ্যে রয়েছে আল কাশেফ, তাবাকাতুল কুরা, মুআজামুল ছাগির এবং মুআজামুল কাবির। খ্যাতনামা এই মুসলিম মনীষী হিজরী ৭৪৮ সালে সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে পরলোক গমন করেন।


মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন