এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
রবিবার, 10 জুলাই 2011 17:29

সঠিক নেতৃত্বের অভাবে হত্যা, সন্ত্রাস ও ছিনতাই’র মত অপরাধ ক্রমেই বাড়ছে : সমাজবিজ্ঞানীদের অভিমত

১০ জুলাই ( রেডিও তেহরান) : মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে রাজধানী ঢাকায় পৃথক দু'টি ছিনতাইয়ের ঘটনায় লুট হয়েছে প্রায় ২৩ লাখ টাকা। আর গুলিবিদ্ধ হয়েছেন এক ব্যক্তি।
আজ (রোববার) দুপুরে রাজধানীর বাড্ডা ও যাত্রাবাড়িতে এ ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় থানার পুলিশ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। শুধু আজকের এ দুই ছিনতাই'র ঘটনাই নয়, প্রায় প্রতিদিনই ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে এমন অনেক ছিনতাই, গুলি ও ডাকাতির ঘটনা ঘটছে। এরই মধ্যে অন্ধ কল্যাণ সমিতির মহাসচিবকে জবাই করে খুনের ঘটনায় বেশ চাঞ্চল্য' সৃষ্টি হয়েছে রাজধানী ঢাকায়। এসব ঘটনার পেছনে সামাজিক সংকট অনেক বড় একটি কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মনে করছেন সমাজবিজ্ঞানীরা। এ প্রসঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক কামরুল আহসান চৌধুরী রেডিও তেহরানকে বলেছেন, বাংলাদেশের হাজার বছরের পুরোনো মূল্যবোধগুলো ক্রমেই হারিয়ে গেছে সমাজ থেকে। নব্য সংস্কৃতি আর পাশ্চাত্য ঢং'এর কারণে হারিয়ে যেতে বসেছে দেশীয় সংস্কৃতি। এসব কারণে সমাজে আজকাল অস্থিরতা বাড়ছে বলে মনে করছেন সমাজবিজ্ঞানী কামরুল আহসান। তিনি বলেন, বর্তমানে দেশের নেতৃত্বে যারা আছেন তারা লুটপাটে ব্যস্ত। আর যারা লুটপাটে ব্যস্ত থাকেন তারা সঠিক নেতৃত্ব কখনোই দিতে পারেন না। যারা ছিনতাই করছে তাদের পেছনে অনেক বড় রাজনৈতিক শক্তি রয়েছে বলে মনে করেন তিনি। সে কারণেই পুলিশ এসব অপরাধ এককভাবে সমাজ থেকে দূর করতে পারবে না। কারণ পুলিশ তো রাষ্ট্রেরই একটি অংশ। আর পদ্ধতিগত ত্রুটির কারণে তারাও তো অনেকাংশে দুর্নীতিতে জড়িত। এ সব কিছুর জন্য রাষ্ট্রের পদ্ধতিগত সমস্যা ও নেতৃত্বের অব্যবস্থাপনাকে দায়ী করেছেন এই সমাজবিজ্ঞানী। মানবাধিকার নেত্রী এ্যাডভোকেট এলীনা খান রেডিও তেহরানকে বলেছেন, দেশের নেতৃত্বদানকারী রাজনীতিবিদরা এত বেশি অস্থির অবস্থায় থাকছেন, যে কারণে দেশের সিস্টেম ডেভেলপমেন্টের দিকে তাদের কোন নজর থাকছে না। তারা নিজেদের নিয়েই বেশি ব্যস্ত। ফলে পুলিশ প্রশাসন রাষ্ট্রযন্ত্রের অংশ নয়, বরং রাষ্ট্রযন্ত্র কোন কোন সময়ের জন্য পুলিশের অংশ হয়ে যায় বলে মন্তব্য করেছেন এই মানবাধিকার কর্মী। কাজেই দেশে রাষ্ট্রের নেতৃত্বের সক্ষমতা এবং স্থিরতা না বাড়ানো গেলে সামাজিক অপরাধ কমানো সম্ভব হবে না বলে মনে করছেন এই দুই বিশ্লেষক।

 

তেহরান রেডিও/এনআর/এমএইচ/১০.১৬{jcomments on}

 

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন