এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
শনিবার, 07 মে 2016 16:36

গাজায় সৃষ্ট চোরাবালিতে আটকা পড়বে ইসরাইল: বিশ্লেষকদের অভিমত

ইসরাইলি হামলায় আহত এক ফিলিস্তিনি শিশু ইসরাইলি হামলায় আহত এক ফিলিস্তিনি শিশু

মজলুম ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে ইসরাইলি অপরাধযজ্ঞ তীব্রতর হওয়ায় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। জাতিসংঘের মানবিক তৎপরতা বিষয়ক সমন্বয়কারী দফতর ‘ওচা’ এ সংক্রান্ত এ বিবৃতিতে নতুন করে ইসরাইলি আগ্রাসনের নিন্দা জানিয়ে বলেছে, ইসরাইলি সেনারা গত সপ্তাহে হামলা চালিয়ে বেশ ক’জন ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে এবং আহত হয়েছে অন্তত ৮৫ জন। ইসরাইলি হামলায় ফিলিস্তিনিদের বহু ঘরবাড়িও ধ্বংস হয়েছে।

 

জাতিসংঘের এ দফতর এমন সময় ইসরাইলের নিন্দা জানিয়েছে যখন ইসরাইলি সেনাবাহিনী গাজার পূর্ব সীমান্তে গোপন টানেল আবিষ্কারের অজুহাতে চারদিন ধরে একটানা হামলা চালিয়েছে। গতকাল পূর্ব খান ইউনুসে ইসরাইলি কামানের গোলার আঘাতে অনেক হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। গত সপ্তাহে নতুন করে ইসরাইলি আগ্রাসন শুরু হওয়ার পর ফিলিস্তিন পরিস্থিতি আবারো সংকটের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। দখলদার ইসরাইলের কর্মকাণ্ড থেকে বোঝা যায়, তারা সবসময়ই দমন-পীড়ন ও সম্প্রসারণকামী লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য যে কোনো সুযোগকে কাজে লাগায়। জেনেভা কনভেনশনসহ আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে ইসরাইল নতুন করে গাজায় হামলা শুরু করায় আন্তর্জাতিক সমাজের দৃষ্টি এখন ফিলিস্তিনিদের দিকে নিবদ্ধ।

 

আমেরিকাসহ পাশ্চাত্যের সরকারগুলোর ষড়যন্ত্র এবং জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের নিষ্ক্রিয় ভূমিকার কারণে ফিলিস্তিনের ব্যাপারে জাতিসংঘের প্রতিবেদন কখনই বেশিদূর এগোতে পারেনি। কারণ এসব প্রতিবেদন ইসরাইল বিরোধী হওয়ার কারণে কেউ তাতে সাড়া দেয়নি এবং এ কারণে ইসরাইলও আগের চেয়ে আরো বেশী বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তবে ইসরাইল যতই দমন-পীড়ন চালাক না কেন এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, ফিলিস্তিনিরা ইসরাইলি আগ্রাসনের কাছে কখনই নতি শিকার করবে না।

 

ফিলিস্তিনের জনগণ তীব্র প্রতিরোধের মাধ্যমে ইসরাইলের বৃহৎ সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন পূরণের স্বাদ ম্লান করে দিয়েছে। এমনকি ইসরাইলি কর্মকর্তারাও এ বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

 

ইসরাইলের নিরাপত্তা বিষয়ক একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ইউসেফ শাপিরা ২০১৪ সালে গাজায় ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর ৫০ দিনের আগ্রাসনের নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি ৫০ দিনের ওই যুদ্ধের ব্যাপারে ইসরাইলি মন্ত্রীসভার নিরাপত্তা বিষয়ক কমিটির সিদ্ধান্তের ব্যাপারে বলেছেন, ওই যুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর দুর্বলতা প্রমাণিত হয়েছে এবং তা ইসরাইলের ক্ষতির মধ্য দিয়েই শেষ হয়েছে।

 

ইসরাইলের একটি টিভি চ্যানেল গাজায় ৫০ দিনের যুদ্ধকে ইসরাইলি রাজনীতির জন্য টাইম বোমা হিসেবে অভিহিত করে বলেছিল, এতে করে ইসরাইলে সংকট তৈরি হবে। প্রতিবেদনে বলা হয়, গাজা উপত্যকায় হামলা চালিয়ে ইসরাইল শুধু যে, লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ হয়েছে তাই নয় একই সঙ্গে গাজা যুদ্ধে ব্যর্থতার কারণে ইসরাইলি কর্মকর্তাদের মধ্যেও দেখা দিয়েছে তীব্র মতবিরোধ।

 

এ অবস্থায় ইসরাইল গাজায় নতুন করে হামলা চালিয়ে একদিকে যুদ্ধে নিজেদের ব্যর্থতাগুলো ঢাকার চেষ্টা করছে এবং অন্যদিক নিজেদের অভ্যন্তরীণ গভীর রাজনৈতিক সংকট থেকে বিশ্ববাসীর দৃষ্টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে। এ কারণে বিশ্লেষকরা মনে করছেন, গাজা উপত্যকায় নতুন করে হামলা চালিয়ে ইসরাইল কেবল নিজের সৃষ্ট চোরাবালিতেই আটকা পড়বে।#

 

মোঃ রেজওয়ান হোসেন/৭

 

 

 

 

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন