এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
শনিবার, 07 মে 2016 00:39

মুস্তাফিজ-ভুবনেশ্বরের বোলিংয়ে দিশেহারা গুজরাট, জয় পেল হায়দ্রাবাদ

মুস্তাফিজ-ভুবনেশ্বরের বোলিংয়ে দিশেহারা গুজরাট, জয় পেল হায়দ্রাবাদ

মুস্তাফিজ-ভুবনেশ্বরের নিয়ন্ত্রিত বোলিং ও শিখর ধাওয়ানের অসাধারণ ব্যাটের সুবাদে গুজরাট লায়ন্সকে পাঁচ উইকেট হারিয়েছে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। এ জয়ের ফলে আইপিএলের পয়েন্ট টেবিলের চার নম্বরে উঠে এল ডেভিড ওয়ার্নারের দল। এর আগে টুর্নামেন্টের প্রথম দেখায় গুজরাটের মাঠেই গুজরাটকে দশ উইকেটে হারের লজ্জায় ডুবিয়েছিল হায়দ্রাবাদ।

 

শুক্রবার রাতে রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে হায়দ্রাবাদের বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে স্কোরবোর্ডে মাত্র ১২৬ রান তুলতে সমর্থ হয় পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থাকা সুরেশ রায়নার গুজরাট। জবাবে, এক ওভার ও পাঁচ উইকেট হাতে রেখে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় হায়দ্রাবাদ।

 

টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ডেভিড ওয়ার্নার। অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দেন হায়দ্রাবাদের বোলাররা। ভুবনেশ্বর কুমার ও আশিষ নেহরার দারুণ বোলিংয়ে গুজরাটের ওপেনার ব্রেন্ডন ম্যাককালাম ও ডোয়াইন স্মিথ ইনিংসের প্রথম দুই ওভারে কোনো রানই তুলতে পারেননি। গুজরাটের প্রথম রান এসেছে ইনিংসের ১৪তম বলে। এটাই আইপিএলের সবচেয়ে ধীরগতির সূচনার নতুন রেকর্ড। তবে ওই ওভারের ৪র্থ বলে ওপেনার স্মিথকে আউট সুইংয়ের ফাঁদে ফেলেন ভুবনেশ্বর কুমার। নিজের করা পরের ওভারে তিনি তুলে নেন অধিনায়ক সুরেশ রায়নার গুরুত্বপূর্ণ উইকেট। ১০ বলে ২০ রান করে রায়না ফিরে যাওয়ার পর মাঠে নামেন দীনেশ কার্তিক।

 

৫ ওভারে ২৪ রানে দুই উইকেট হারিয়ে চাপের মুখে থাকা গুজরাটের টপ অর্ডারকে ভঙ্গুর করে দিতে ৬ষ্ঠ ওভারে বোলিং করতে আসেন মুস্তাফিজ। নিজের প্রথম বলেই উইকেট তুলে নিতে পারতেন তিনি। কিন্তু ব্রেন্ডন ম্যাককালামের দেয়া সহজ ক্যাচটি ফেলে দিয়েছিলেন শিখর ধাওয়ান। তবে উইকেটের জন্য খুব বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি ‘দ্য ফিজ’কে। সেই ওভারেরই চতুর্থ বলে সাজঘরমুখী করেছেন দীনেশ কার্তিককে। ওই ওভারে দিয়েছিলেন মাত্র দুই রান।

 

কার্তিকের পর পাঁচ নম্বরে খেলতে নামে অ্যারন ফিঞ্চ। অষ্টম ওভারে হেনরিক্সের বলে ওপেনার ম্যাককালাম (৭) আউট হলে ব্যাপক চাপের মুখে পড়ে যায় গুজরাট। পরবর্তীতে ব্রাভো ও ফিঞ্চের ব্যাটে ভর করে দলের স্কোর দশম ওভারে ৫০ রান পার হয়। এই জুটি দলের স্কোর কার্ডে ৪৫ রান যোগ করে বিচ্ছিন্ন হয়।

 

ইনিংসের ১৪তম ওভারে মুস্তাফিজের কাছ থেকে অ্যারন ফিঞ্চ ও ডোয়াইন ব্রাভো নিতে পেরেছেন মাত্র এক রান। স্রানের করা পরের ওভারে দ্রুত রান তুলতে গিয়ে স্কয়ার লেগ বাউন্ডারিতে ক্যাচ আউট হন ব্রাভো। ২০ বলে ১৮ রান করা ব্রাভোর বিদায়ের ক্রিজে আসেন রবীন্দ্র জাদেজা। তিনি ১৩ বলে ১৮ রান করে মুস্তাফিজের এক স্লোয়ার ডেলিভারিতে বোকা বনে যান। বলটি বুঝতে না পেরে মিড অফে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরেছেন ভারতের এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। গুজরাটের হয়ে সর্বোচ্চ ৪২ বলে ৫১ রান করে অপরাজিত থাকেন ফিঞ্চ।

 

হায়দ্রাবাদের পক্ষে মুস্তাফিজ ও ভুবনেশ্বরও দু’টি করে উইকেট লাভ করেন। মুস্তাফিজ ৪ ওভারে মাত্র ১৭ রান দিয়ে দুই উইকেট পেলেও ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন ভুবনেশ্বর। স্মিথ ও রায়নার গুরুত্বপূর্ণ উইকেট লাভ করাতেই ২৮ রান দিয়েও ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন তিনি। বাকি দু’টি উইকেট নেন বারিন্দার স্রান ও হেনরিকস। চার ওভারে ২৩ রান খরচায় উইকেটশূন্য থাকেন নেহরা।

 

এদিকে, সহজ লক্ষ্যে খেলতে নেমে দলীয় ৩৩ রানের মধ্যে দারুণ ফর্মে থাকা ডেভিড ওয়ার্নার (২৪) ও কেন উইলিয়ামসনের (৬) উইকেট হারিয়ে খানিকটা চাপের মুখে পড়ে সানরাইজার্স। ইনজুরি কাটিয়ে এবারের আসরে প্রথমবারের মতো মাঠে নেমে যুবরাজ সিং ১৪ বলে মাত্র ৫ রান করে সাজঘরে ফেরেন।। তবে দলের হাল ধরেন অপর ওপেনার শিখর ধাওয়ান। তিনি ছোট ছোট জুটি গড়ে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন। ধাওয়ানের ৪০ বলে ৪৭ রানের অপরাজিত ইনিংসে ছিল ছয়টি চারের ‍মার। এছাড়া, ময়েজেস হেনরিকস ১৪ ও দিপক হুদা করেন ১৮ রান।

 

গুজরাটের হয়ে দু’টি করে উইকেট নেন ধাওয়াল কুলকার্নি ও ডোয়াইন ব্রাভো। বাকি উইকেটটি নেন প্রবীন কুমার।

 

ম্যাচ শেষে প্রশ্নোত্তর পর্বে হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার ওপেনার শিখর ধাওয়ানের প্রশংসা করার পাশাপাশি বোলারদেরকেও কৃতিত্ব দেন। তিনি বলেন, “এটি আসলে স্বস্তির জয়, আমরা একটু পিছিয়ে পড়েছিলাম কিন্তু এই জয়ে আমরা এগিয়ে গেছি। ব্যাটিংয়ের শুরুটা আরও ভালো হতে পারত আমাদের, এই রান তাড়া করতে নেমে আমরা হোঁচট খেয়েছি কিন্তু ধাওয়ান অসাধারণ ব্যাট করেছে, তার বদৌলতে জয়টি এসেছে।”

 

তিনি আরও বলেন, “জয়ের ভিত গড়ে দিয়েছে আমাদের বোলাররা। আমি তাদের পারফর্মেন্সে অনেক সন্তুষ্ট। মুস্তাফিজ, ভুবি (ভুবনেশ্বর), হেনরিক্স অসাধারণ বল করেছে। আমরা পরিকল্পনা অনুযায়ী বল করেছি, আর সেই সুবাদে ঠিক সময় উইকেটও তুলে নিয়েছি।”

 

আগামী রোববার (৮ মে) নিজেদের পরবর্তী ম্যাচে স্বাগতিক মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মুখোমুখি হবে হায়দ্রাবাদ। #

 

আশরাফুর রহমান/৭

 

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন