এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
বুধবার, 03 সেপ্টেম্বর 2014 19:06

'বাংলাদেশে পাবলিক সেক্টরে ঋণের পরিমাণ প্রায় ২০০০ কোটি টাকা'

৩ সেপ্টেম্বর (রেডিও তেহরান): অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত জাতীয় সংসদে বলেছেন, "বাংলাদেশে পাবলিক সেক্টরে ২০১২-১৩ অর্থবছরের জুন পর্যন্ত মোট ১ লাখ ৯৫ হাজার কোটি টাকার বিদেশি ঋণ রয়েছে। এ জন্য ২০১৩-১৪ অর্থবছরে বৈদেশিক ঋণ বাবদ সরকারকে এক হাজার ৫৭১ কোটি টাকা সুদ পরিশোধ করতে হয়েছে। একইসঙ্গে এ ঋণের আসল বাবদ ৮ হাজার ১৮৫ কোটি টাকাও পরিশোধ করেছে।"

আজ (বুধবার) দশম জাতীয় সংসদের তৃতীয় অধিবেশনের তৃতীয় কার্যদিবসে স্বতন্ত্র সদস্য তাহজীব আলম সিদ্দিকীর প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এসব তথ্য দেন।  
নোয়াখালী-২ আসনের সংসদ সদস্য মোরশেদ আলমের  প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী জানান, চলতি অর্থবছরের ৩১ জুলাই পর্যন্ত বিভিন্ন দাতাদেশ ও সংস্থা হতে ১ হাজার ৩১৪ কোটি টাকা ঋণ ও  ৬৭ কোটি টাকা অনুদান নেয়া হয়েছে।

আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম (মাদারীপুর-৩) শেয়ার মার্কেটের গতিশীলতা ও বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফেরাতে সরকারের পরিকল্পনা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ‘আটটি পদক্ষেপ’ গ্রহণের কথা জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে সরকার সচেষ্ট রয়েছে। শেয়ার বাজারের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার লক্ষে ২০১৬ সালের মধ্যে পৃথক ক্লিয়ারিং কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ, বন্ড মার্কেট প্রসারের পরিকল্পনা, ভেঞ্চার ক্যাপিটাল ও প্রাইভেট ইক্যুইটি সংক্রান্ত বিধি প্রণয়ণসহ ২০১৬-১৮ সালের মধ্যে স্কুল ও কলেজের পাঠক্রমে ফাইন্সিয়াল লিটারেসি কোর্স প্রবর্তনের উদ্যোগ নেয়া হবে।

প্রবাসী আয় প্রসঙ্গে মামুনুর রশিদ কিরণের (নোয়াখালি-৩) প্রশ্নের উত্তরে অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০০৯-১০ অর্থবছর থেকে ১৩-১৪ অর্থবছর পর্যন্ত সরকারি পর্যায়ে সোনালী, অগ্রণী ও জনতা ব্যাংক এবং বেসরকারি পর্যায়ে ইসলামী, ন্যাশনাল ও ব্র্যাক ব্যাংক প্রবাসী আয়ে শীর্ষে ছিল। এর মধ্যে সোনালী ব্যাংক ৫ হাজার ৫৮৯ মার্কিন ডলার, অগ্রণী ব্যাংক ৫ হাজার ৫৬৮ মার্কিন ডলার ও জনতা ব্যাংক ৪ হাজার ৪৫৪ মার্কিন ডলার রেমিটেন্স আয় করে। অন্যদিকে ইসলামী ব্যাংক ১৪ হাজার ৯৯ মার্কিন ডলার, ন্যাশনাল ব্যাংক ৩ হাজার ২১ মার্কিন ডলার ও ব্র্যাক ব্যাংক ২ হাজার ২৭৮ মার্কিন ডলার আয় করেছে।

হাবীবুর রহমান মোল্লার (ঢাকা-৫) প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, ২০১৬ সালের মধ্যে সরকারি মালিকানাধীন ব্যাংকগুলোর সকল শাখাতে কোর ব্যাংকিং সিস্টেমসহ অনলাইন ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনার কর্মপরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

এ বিষয়টি নিবিড়ভাবে তদারকি করার জন্য বাংলাদশ ব্যাংকের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে সোনালী ব্যাংকের ১২০২টি শাখার মধ্যে ১১৬০টি, জনতা ব্যাংকের ৮৯৮টি শাখার সবকটিতে এবং রূপালী ব্যাংকের ৫১৭টি শাখার মধ্যে ১৬৪টি শাখা অনলাইন (কোর ব্যাংকিং ব্যতিত) সেবা প্রদান করছে বলে জানান মন্ত্রী।

শামসুল হক টুকুর (পাবনা-১) প্রশ্নের উত্তরে মুহিত বলেন, সাতটি বিভাগীয় শহরসহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ২৯টি শাখা রয়েছে। প্রতিটি জেলায় এ ব্যাংকের শাখা এখনও স্থাপন করা সম্ভব হয়নি। তবে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রবাসী অধ্যুষিত জেলা ও উপজেলায় এ ব্যাংকের শাখা স্থাপন করা হবে।

বর্তমান সরকার বৈদিশিক মুদ্রা রিজার্ভে নতুন রেকর্ড করেছে বলেও জানান অর্থমন্ত্রী।#

 

 রেডিও তেহরান/এআর/৩

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন