এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
শনিবার, 23 এপ্রিল 2016 19:09

পশ্চিমবঙ্গে ‘মা-মাটি-মানুষ’ সুরক্ষিত নয়: বনগাঁয় রাজনাথ সিং

পশ্চিমবঙ্গে ‘মা-মাটি-মানুষ’ সুরক্ষিত নয়: বনগাঁয় রাজনাথ সিং

পশ্চিমবঙ্গে ‘মা-মাটি-মানুষ’ সুরক্ষিত নয় বলে মন্তব্য করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা সিনিয়র বিজেপি নেতা রাজনাথ সিং। আজ (শনিবার) দুপুরে উত্তর ২৪ পরগণা জেলার বনগাঁ শহরে এক নির্বাচনি জনসভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

 

রাজনাথ বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে আগে ৩৪ বছর ধরে বামফ্রন্ট সরকার ক্ষমতায় ছিল। তৃণমূল ক্ষমতায় আসার আগে রাজ্যের মানুষকে আশ্বাস দিয়ে বলেছিল, আমাদের সরকার রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পরে অনেক বড় ‘পরিবর্তন’ হবে। আমরা কৃষকদের, গরীবদের, শ্রমিকদের, যুবকদের, ব্যবসায়ীদের সমস্যা আমরা সমাধান করব। কিন্তু তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার ৫ বছর পরে যদি মানুষকে জিজ্ঞাসা করা হয় আপনারা কি পরিবর্তনের আলো দেখতে পেয়েছেন? তাহলে মানুষ বলছে কোনো পরিবর্তন আমরা দেখতে পাচ্ছি না। কেউ কেউ বলছে বিগত সরকারের আমলের চেয়েও বর্তমান পরিস্থিতি খারাপ।’

 

রাজনাথ বলেন, ‘তৃণমূল কংগ্রেস মা-মাটি-মানুষের কথা বলে। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেসের হুকুমতে মা, মাটি, মানুষ কিছুই সুরক্ষিত নয়। এখানে এক দলের কর্মীরা অন্য দলের কর্মীদের উপরে হামলা চালাচ্ছে। সিপিএমের আমলে রাজনৈতিক সহিংসতা হয়েছিল। আমি মনে করেছিলাম রাজ্যে যদি অন্য দল অর্থাৎ তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসে তাহলে রাজনৈতিক সহিংসতা আর হবে না। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেসের শাসনামলে আগের চেয়েও বেশি রাজনৈতিক হিংসা হচ্ছে। মানুষের উপরে জুলম এবং অত্যাচার হচ্ছে।’

 

জনসভায় উপস্থিত জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘যতদিন রাজনৈতিক সহিংসতা চলবে ততদিন গণতন্ত্রের কল্পনাও করা যাবে না। যদি পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিকে আপনারা শক্তি দেন, তারা যদি ক্ষমতায় আসে তাহলে আমরা কখনোই রাজনৈতিক সহিংসতার অনুমতি দেব না।’

 

তিনি বলেন, ‘আমি গ্রামীণ এলাকার মানুষদের জিজ্ঞাসা করেছি উন্নয়নের নামে কী হয়েছে? গরিব এবং বেকার যুবকদের কাছে জানতে চেয়েছি কী করেছে এই সরকার? তারা কেউ কেউ বলছে রেশনে খাদ্য সামগ্রী ঠিকমত পাওয়া যাচ্ছে না। কেউ বলছে আমাদের হাসপাতাল আছে তো ডাক্তার নেই, কেউ বলেছে, ডাক্তার আছে কিন্তু ওষুধ নেই। আমি তাদের জিজ্ঞাসা করেছি ওষুধ তো পাওয়া যায় না কিন্তু দারু (মদ) কি পাওয়া যায়? তারা বলেছে হ্যাঁ দাওয়া (প্রতিষেধক) পাওয়া যায় না কিন্তু দারু পাওয়া যায়। এ ধরণের সরকার কি পশ্চিমবঙ্গে চলা উচিত?’

 

রাজনাথ সিং বলেন, ‘স্বাধীনতার পরে পশ্চিমবঙ্গকে সমৃদ্ধশালী রাজ্য বলে মনে করা হতো। কিন্তু এই পশ্চিমবঙ্গে এখন পাট শিল্প, চা শিল্প, টেক্সটাইলস শিল্প বন্ধ হয়ে গেছে। মানুষ এখন বলছে এখানে এখন বোমা শিল্প চলছে।’

 

দুর্নীতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমরা কেন্দ্রে ক্ষমতায় রয়েছি গত দুই বছর ধরে, আমাদের বিরুদ্ধে কি কোনো দুর্নীতির অভিযোগ আছে? সাবেক অটল বিহারী বাজপেয়ী সরকার হোক অথবা বর্তমান মোদি সরকার হোক কোনো মন্ত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির দাগ নেই। আমরা দুর্নীতিকে কোনোমতেই বরদাস্ত করব না। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরুদ্ধে কখনো সারদা কেলেঙ্কারি, কখনো নারদা কেলেঙ্কারির অভিযোগ উঠেছে। কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্তদের মন্ত্রিত্বে রেখে সরকার চালাচ্ছে! আপনারাই চিন্তা করে দেখুন। এজন্য আমি আপনাদের বলব বিজেপির শক্তি বৃদ্ধি করুন। বনগাঁয় বিজেপি প্রার্থী কে ডি বিশ্বাসকে ভোট দিয়ে জয়ী করুন।’

 

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং আজ সীমান্ত শহরে জনসভা করার সুবাদে অনেকেই ভেবেছিলেন হয়ত অনুপ্রবেশ, গরু পাচার, উদ্বাস্তু সমস্যা, ওপার বাংলা থেকে আসা মানুষদের নাগরিকত্ব সমস্যা ইত্যাদি নিয়ে কথা বলবেন। কিন্তু রাজনাথ সিং ওই সব দিকে না গিয়ে স্রেফ রাজনৈতিক সহিংসতা, উন্নয়ন এবং সারদা, নারদা কেলেঙ্কারির কথা স্পর্শ করে বিজেপি প্রার্থীর হয়ে ভোট প্রার্থনা করেছেন।

 

রাজনাথের জনসভায় আজ লোকজন তেমন কেউ না আসায় স্থানীয় নেতা কর্মীরা কার্যত হতাশ হয়েছেন। দেশের প্রতাপশালী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর জনসভায় ফাঁকা কার্যত মাঠে বিজেপির বেহাল দশা স্পষ্ট হয়েছে বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন।# (এমএএইচ/এআর)

 

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন