এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
মঙ্গলবার, 03 মে 2016 18:41

কথা বলতে না পারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থি: সুলতানা কামাল

কথা বলতে না পারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থি: সুলতানা কামাল

আজ বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস। এদিনটিতে বিশ্বের আন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের গনমাধ্যম সোচ্চার হয়েছে মানুষের মৌলিক অধিকার ও গণতন্ত্রের পূর্ব শর্ত মতপ্রকাশের স্বাধীনতা প্রসঙ্গে। এ উপলক্ষে আজ (মঙ্গলবার) ইউনেসকো বাংলাদেশ’র সহযোগিতায় ম্যাস লাইন মিডিয়া সেন্টার ও ইনস্টিটিউট অব কমিউনিকেশনস স্টাডিজ- রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে এক আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

 

বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও মানবাধিকার নেত্রী সুলতানা কামাল বলেছেন, ‘বাংলাদেশে মানুষ কথা বলতে ভয় পাচ্ছে, সেটা আমরা অস্বীকার করতে পারব না। কথা বলতে বা মত প্রকাশ করতে না পারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থি।“

 

তিনি বলেন, সবকিছুই যে সরকার করে দেবে, তা নয়। নাগরিকদেরও দায়িত্ব আছে। গণতান্ত্রিক চর্চার যে ঘাটতি রয়েছে, সেটা থেকে বেরিয়ে আসার ওপর গুরুত্ব দেন তিনি।

 

সুলতানা কামালের বক্তব্যকে সমর্থন করেন বেসরকারী গণমাধ্যম সংস্থা বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব জার্নালিজম এন্ড ইলেকট্রনিক মিডিয়া’র নির্বিহী পরিচালক মির্জা তারেকুল কাদের। তিনি রেডিও তেহরানকে বলেন, স্বাধীনতা ও গণতান্ত্রিক চেতনার মূলে রয়েছে স্বাধীনভাবে মত প্রকাশ করার অধিকার । সে অধিকার আজ নানাভাবে সংকুচিত।

 

এ প্রসঙ্গে দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার সহকারী সম্পাদক আবদুল আউয়াল ঠাকুর এদেশের গনমাধ্যমের উপর নানা নিপীড়নের কথা তুলে ধরে বলেন বাংলাদেশে যেমন গণতন্ত্র নেই তেমন স্বাধীন মতপ্রকাশের সূযোগও নেই।

 

অনুরূপ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে যশোরের আঞ্চলিক পত্রিকা “লোক সমাজ”-র সম্পাদক আনোয়ারুল কবির বাংলাদেশের বর্তমান গণতন্ত্রহীন পরিবেশ ও স্বাধীনভাবে মতপ্রকাশের সমূহ প্রতিবন্ধকতা থেকে রক্ষা পেতে আন্তর্জাতিক বিবেকের প্রতি সহায়তার আবেদন করেন।

 

বাংলাদেশের মূলধারার গণমাধ্যম স্বাধীন মতামত প্রকাশের ক্ষেত্রে সরকারি প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা করলেও সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক কিছুই প্রকাশ পাচ্ছে যা ক্ষমতাসীন সরকার চাইলেও চেপে রাখতে পারছে না।

 

বিশেষ বিশেষ সময়ে ফেসবুকসহ নানা সামাজিক মাধ্যমে অতি দ্রুত খবর, ভিডিও চিত্র বা বিরুদ্ধ মতামত প্রচারিত হচ্ছে। আধুনিক যোগাযোগ প্রযুক্তি নাগরিকদের হাতে এসব সহজলভ্য সূযোগ এনে দিয়েছে।#

 

এমএএইচ/জিএআর/৩

 

মাধ্যম

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন