এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সাবেক শিল্পমন্ত্রী ও জামায়াতে ইসলামীর আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর আপিলের রায়ের বিরুদ্ধে করা পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) আবেদন খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। এর ফলে নিজামীর বিরুদ্ধে দেয়া মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রইল।

তুরস্কের ক্ষমতাসীন জাস্টিস অ্যান্ড ডেপভলপমেন্ট পার্টি বা একেপি’র পদ থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন প্রধানমন্ত্রী আহমেদ দাউদওগ্লু। তিনি দলের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের সঙ্গে মতবিরোধের কারণে দাউদওগ্লু ক্ষমতা ছাড়ার পরিকল্পনা করেছেন বলে জানিয়েছেন তুর্কি কর্মকর্তারা।

আজ হতে ২১৭ বছর আগে ১৭৯৯ সালে এই দিনে (৪ মে) ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদীদের চাপিয়ে দেয়া যুদ্ধে শাহাদত বরণ করেন দক্ষিণ ভারতের মুসলিম বীর ও মহিশুরের প্রখ্যাত স্বাধীন রাজা ফাতহ আলী খান টিপু সুলতান। 

 

সেরিঙ্গাপট্টমের যুদ্ধ নামে খ্যাত এই যুদ্ধটি উপনিবেশবাদী ব্রিটিশরা চাপিয়ে দিয়েছিল পূর্ববর্তী শান্তি চুক্তির শর্ত লঙ্ঘন করে। এ নিয়ে তারা চার বার শান্তি চুক্তি লঙ্ঘন করে।

ফরাসি সম্রাট নেপোলিয়ন বোনাপার্টের সঙ্গে ‘মহিশুরের সিংহ’ নামে খ্যাত টিপুর ক্রমবর্ধমান সম্পর্ক ইংরেজদের জন্য আতঙ্কের একটি বড় কারণ হয়ে পড়েছিল। টিপু ইরানি সম্রাট ও তুর্কি সাম্রাজ্যের সঙ্গেও যোগাযোগ রক্ষা করতেন।

 

তৎকালীন ইরানের  সম্রাট ফাতহ আলী শাহ কাজার টিপুকে সাহায্য করার জন্য ৬ হাজার ইরানি সেনাকে ভারতের দিকে পাঠিয়েছিলেন জাহাজযোগে। কিন্তু এই সেনারা সেরিঙ্গাপট্টমের পতনের পর ভারতে পৌঁছে।   

টিপুর বাবা মহিশুরের রাজা হায়দার আলীও ছিলেন কুরাইশ বংশোদ্ভূত একজন বড় বীর। হায়দার আলী নানা যুদ্ধে উপনিবেশবাদী ইংরেজদের বিধ্বস্ত করেছিলেন। হায়দার আলী ক্যান্সারে মারা যাওয়ার পর মহিশুরের নতুন রাজা হন টিপু সুলতান। তিনিও বেশ কয়েকটি যুদ্ধে ইংরেজ বাহিনীকে বিপর্যস্ত করেছিলেন। বলা হয় ভারতের হায়দারাবাদ ও অযোধ্যার রাজাদের অসহযোগিতা এবং নিজ রাজ্যের বিশ্বাসঘাতকদের বাধা আর প্রতারণার শিকার না হলে হায়দার আলী ও টিপু সুলতান ভারত উপমহাদেশ থেকেই হানাদার ইংরেজদের চিরতরে বিতাড়িত করতে পারতেন।  

 

টিপু সুলতান ছিলেন উদার, মহানুভব ও জ্ঞানী শাসক। তিনি আরবি ও ফার্সি সাহিত্যের পৃষ্ঠপোষকতা করতেন। বিজ্ঞানমনস্ক টিপু ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা সম্পন্ন করেছিলেন সে যুগে। কয়েকটি যুদ্ধে ইংরেজ বাহিনীর বিরুদ্ধেও ব্যবহার করেছিলেন সেইসব ক্ষেপণাস্ত্র। আর এ বিষয়টি ব্রিটিশদের আতঙ্কিত করেছিল।  বেশ কয়েকটি কারখানায় নির্মিত হত সেইসব ক্ষেপণাস্ত্র। এক থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূর পর্যন্ত যেতে পারত সেইসব ক্ষেপণাস্ত্র বা রকেট।  সে সময় ইউরোপীয়দের কাছেও ছিল রকেট। তবে তা টিপুর রকেটের চেয়ে অনেক নিম্নমানের ছিল। যেমন, সেগুলো লোহার টিউবে ঢাকা থাকত না। তাই সেসব বেশি চেম্বার-প্রেশার বহন করতে পারত না বলে বেশি দূরে বা কাঙ্ক্ষিত দূরত্বে ব্যবহার করা যেত না। কিন্তু টিপুর রকেটগুলো লোহায় আবৃত থাকায় সেসবে এইসব সমস্যা ছিল না। টিপুর ক্ষেপণাস্ত্র বিভাগের সেনা সংখ্যা ছিল প্রায় ৫ হাজার। নানা সাইজের বাঁশের সঙ্গে যুক্ত ক্ষেপণাস্ত্রগুলো ছিল লম্বায় ৮ ইঞ্চি ও চওড়ায় ( কিছুটা বৃত্তাকার) প্রায় তিন ইঞ্চি। পরাজিত টিপু সুলতানের রকেট বাহিনীর অব্যবহুত কিছু রকেট নমুনা হিসেবে ব্রিটেনের গবেষণাগারে পাঠানো হয় যাতে সেগুলো দেখে একই মানের রকেট বানাতে পারে তারা। 

 (অবশ্য ইউরোপ ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তিতে পরে অনেক অগ্রসর হয় ও উন্নত মানের  রকেট তৈরি করতে থাকে।) 

 

টিপু সুলতানকে নিয়ে নির্মিত হয়েছে টিভি-সিরিয়াল ও চলচ্চিত্র।

মহিশুরের  হায়দারি মুসলিম রাজবংশের (যার প্রতিষ্ঠাতা  ছিলেন হায়দার আলী ) নির্ভরযোগ্য ইতিহাস পাওয়া যায় ‘নিশানই হায়দারি’ ও ‘তাজকিরাতুল বিলাদ ওয়াল হুক্কাম’ নামক দু’টি বইয়ে। ইরান-থেকে-আসা হুসাইন আলী খান কিরমানি লিখেছিলেন এ দু’টি বই। তিনি হায়দার আলীর রাজসভার সদস্য ছিলেন।

টিপু সুলতান বলতেন:  ভীরু শিয়ালের মত বহু বছর বেঁচে থাকার চেয়ে লড়াকু বাঘের মত ১ দিন বেঁচে থাকাই শ্রেয়।   #

 

মু. আমির হুসাইন/৪

 

 

 

 

গৌতম গম্ভীর ও রবিন উথাপ্পার শত রানের জুটি এবং আন্দ্রে রাসেলের বিধ্বংসী বোলিংয়ে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে ৭ রানে হারিয়েছে কোলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর)। এর ফলে চলমান আইপিএলের ৯ ম্যাচে ৬ জয় নিয়ে আবারও পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান দখল করল গৌতম গম্ভীরের দল। ৯ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট পেলেও নেট রান রেটে পিছিয়ে থাকায় দুই নম্বরে রয়েছে সুরেশ রায়নার গুজরাট।

 

কোলকাতার ইডেন গার্ডেনসে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৬৪ রানের স্কোর গড়ে কোলকাতা। জবাবে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৫৭ রান তুলতে সক্ষম হয় পাঞ্জাব। শুরুতেই কোলকাতার ফাস্ট বোলারদের তোপের মুখে পড়ে পাঞ্জাবের টপ অর্ডার। ওপেনার মুরলি বিজয় ৬ রান করলেও মারকাস স্টোইনিস ও মানাম ভোহরা শূন্য রানে আউট হন। ২৪ রান করে উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান ঋদ্ধিমান সাহা কিছুটা প্রতিরোধ গড়লেও পিয়ুষ চাওলার লেগ স্পিনে তিনিও প্যাভিলিয়নে ফিরে যান।

 

পরবর্তীতে চাপের মুখে থাকা পাঞ্জাবকে খেলায় ফিরিয়ে আনেন অজি ব্যাটসম্যান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ডেভিড মিলারের সঙ্গে ৬৭ রানের জুটি গড়ে জয়ের আশাও জাগিয়ে তোলেন তিনি। কিন্তু ইনিংসের ১৬তম ওভারে চাওলার স্পিনে ৬৮ রানে লেগ বিফোর হন ম্যাক্সওয়েল। দলের স্কোর তখন ১২০ রান। পরের ওভারেই রাসেলের বলে ডেভিড মিলার ১৩ রানে আউট হলে ম্যাচ কঠিন হয়ে পড়ে পাঞ্জাবের। শেষের দিকে আক্সার প্যাটেল ৭ বলে ২১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেললে ম্যাচে কিছুটা উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। তবে, শেষ ওভারে আন্দ্রে রাসেলের বলে দুটি রান আউট ও একটি উইকেটের পতন ঘটলে ৭ রানের জয় পায় কোলকাতা। আন্দ্রে রাসেল চার ওভারে ২০ রান দিয়ে ৪ উইকেট শিকার করেন। এছাড়া, পিয়ুষ চাওলা দুটি ও মর্কেল একটি উইকেট লাভ করেন।

 

এর আগে ব্যাটিংয়ে নেমেই দুর্দান্ত সূচনা করেছিলেন কোলকাতার দুই ওপেনার অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর ও রবিন উথাপ্পা। তাদের দৃঢ় ব্যাটিংয়ে দলের অর্ধশতক পূর্ণ হয় ৪৮ বলে। শুরুতে রান রেট কম থাকলেও পরে রানের গতি বাড়ান এই দুই ওপেনার। দলের শতরান পূর্ণ হয় মাত্র ৭৮ বলে।

 

৪২ বলে অর্ধশতক পূর্ণ করা অধিনায়ক গম্ভীর শেষ পর্যন্ত ৪৫ বলে ৫৪ রান করে রান আউটের শিকার হন, তবে অপরপ্রান্ত থেকে রানের চাকা চালিয়ে নিয়ে যান রবিন উথাপ্পা। তবে শেষ পর্যন্ত ৪৯ বলে ৭০ রান করে তিনিও রান আউট হন। শেষের দিকে ইউসুফ অপরাজিত ১৯ রান এবং আন্দ্রে রাসেল ১০ বলে ১৬ করে আউট হন।

 

১৬ রান ও ৪ উইকেট নিয়ে প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হয়েছেন আন্দ্রে রাসেল।#

 

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ করেছে দিল্লিতে ক্ষমতাসীন আম আদমি পার্টি (আপ)। দলটির পক্ষ থেকে আজ (বুধবার) দাবি করা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর স্নাতক ডিগ্রি ভুয়া এবং তিনি কখনো দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েননি।

 

‘আপ’ নেতা আশিস খৈতান দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে দীর্ঘ প্রায় এক ঘণ্টা ধরে বৈঠক করার পর আজ বলেন, ‘মোদিজির শিক্ষাগত যোগ্যতা ভুয়া। সংবাদপত্রে দেখানো ডিগ্রি জাল। মোদিজি কখনো দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হননি এবং তিনি কখনো এখানে পড়েননি। আর যখন ওনার বিএ ডিগ্রিই জাল তখন তিনি কোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ (স্নাতকোত্তর) কীভাবে করতে পারেন?’

 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কে জানতে চেয়ে তথ্য জানার অধিকার আইনে জাতীয় তথ্য কমিশনে চিঠি দেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তার ভিত্তিতে মোদির শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কে তথ্য দিতে কমিশন নির্দেশ দেয় দিল্লি ও গুজরাট বিশ্ববিদ্যালয়কে। তথ্য সূত্রে প্রকাশ, দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মোদি বিএ পাস করেন এবং গুজরাট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ করেন। গুজরাট বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে প্রকাশ, এমএ-তে প্রথম শ্রেণিতে পাস করেছিলেন মোদি।

 

গত সপ্তাহে কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশন প্রধানমন্ত্রীর বিএ ডিগ্রি সম্পর্কিত তথ্য দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে জানানোর নির্দেশ দেয়। আজ ‘আপ’ নেতা আশিস খৈতান দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রায় ঘণ্টা খানেক ধরে বৈঠক শেষে বাইরে বেরিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশনের নির্দেশ সত্ত্বেও দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় রেকর্ড দেখাতে অস্বীকার করে এবং বলে আপনি এই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে জেনে নিন।

 

এর আগে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী মোদির শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং দুই রকম জন্ম তারিখ নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়েছে। তাদের দাবি, নরেন্দ্র মোদি বিএ ডিগ্রি কোথা থেকে পেয়েছেন? এমএ করেছেন মানেই বিএ করেছেন, তার প্রমাণ কোথায়? বিএ করার সময় দশ জন সহপাঠির নাম বলুন প্রধানমন্ত্রী। তারা বিএ’র মার্কশিট দেখানোরও দাবি করেছে।

 

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নাকভি অবশ্য বলেছেন, ‘হেলিকপ্টার দুর্নীতিতে সোনিয়া গান্ধীর দিকে অভিযোগের আঙুল উঠতেই এখন দিশাহারা হয়ে পড়েছে কংগ্রেস। তাই আবোলতাবোল বিষয়ে নজর কংগ্রেসের।#

 

এমএএইচ/এআর/৪