এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
বুধবার, 27 এপ্রিল 2016 17:56

খুব শিগগিরি হত্যাকারীদের গ্রেফতার করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

খুব শিগগিরি হত্যাকারীদের গ্রেফতার  করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

‘পাঠক! আমাদের প্রাত্যহিক অনুষ্ঠান কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি গাজী আবদুরর রশীদ ও নাসির মাহমুদ। আজ ২৭ এপ্রিল বুধবারের কথাবার্তার আসরের শুরুতেই বাংলাদেশ ও ভারতের গুরুত্বপূর্ণ দৈনিকের বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম। এরপর বাছাইকৃত কিছু খবরের গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

 

প্রথম আলো অনলাইন: কলাবাগানে জোড়া খুন, গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও আলামত পাওয়া গেছে: ডিএমপি কমিশনার

যুগান্তর অনলাইন: সরকার উৎখাতে ব্যর্থরাই মানুষ হত্যা করছে : প্রধানমন্ত্রী

ইত্তেফাক অনলাইন: ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে উগ্রপন্থিদের হাতে নিহতের তালিকা

 

ভারতের খবর:

 

আনন্দবাজার: জোটের হাওয়ায় নয়া ‘জোশ’আজ এক মঞ্চে বুদ্ধ-রাহুল

বর্তমান: নির্বিঘ্নে কেটেছে পঞ্চম দিনের ভোট

সংবাদ প্রতিদিন: বারাসাথে প্রাক্তন প্রেমিকের ফ্ল্যাটের ছাদ থেকে মারণঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা হার্ভার্ডের অধ্যাপিকার

 

তো, শ্রেতাবন্ধুরা! শিরোনামের পর এবার বাংলাদেশের-সবচেয়ে আলোচিত খবরের গুরুত্বপূর্ণ অংশ তুলে ধরছি।

দেশকে অস্থিতিশীল করতে সুপরিকল্পিতভাবে দেশের বিভিন্ন পর্যায়ে হত্যাকাণ্ড ঘটানো হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ নিজ কার্যালয়ে ফাস্ট ট্রাক প্রজেক্ট মনিটরিং কমিটির চতুর্থ সভায় প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। ইত্তেফাক, প্রথম আলোসহ প্রায় সব অনলাইনের এ খবরে আরো বলা হয়েছে, মানুষ পুড়িয়ে যারা সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরাতে পারেনি তারাই পেছন থেকে এসব গুপ্তহত্যাকারীদের মদদ দিচ্ছে—এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, খুব শিগগির হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করা যাবে।

 

..........

 

দেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে বিশেষ দুটি প্রতিবেদন তুলে ধরছি।

দৈনিক প্রথম আলোর বিশ্লেষণধর্মী একটি প্রতিবেদনের শিরোনাম- ‘১৪ মাসে ৩৪ হামলা’

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ধর্মীয়, গোষ্ঠীগত সংখ্যালঘু ও ভিন্নমতাবলম্বীদের নিশানা করে একের পর এক আক্রমণ ও গুপ্তহত্যার মাধ্যমে দেশে ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি করতে তৎপর উগ্র গোষ্ঠীগুলো।

 

বিশ্লেষকদের ধারণা, অপেক্ষাকৃত সহজ নিশানায় একের পর এক হামলা ও গুপ্তহত্যার মধ্য দিয়ে নিজেদের সামর্থ্যের জানান দেয়ার পাশাপাশি দেশে বড় ধরনের নাশকতার ক্ষেত্র প্রস্তুত করতে চাইছে জঙ্গিরা।

 

আন্তর্জাতিক দুই জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসআইএল ও আল-কায়েদার মতাদর্শ অনুসরণকারী দেশীয় এসব জঙ্গি গত ১৪ মাসে অন্তত ৩৪টি হামলা করেছে বলে সন্দেহ করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এসব হামলায় নিহত হয়েছেন ৩৫ জন। আহত ব্যক্তির সংখ্যা ১২৯।

 

পুলিশ বলছে, আইএসআইএলের নামে দেশীয় সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) একটি অংশ এসব হামলা ও গুপ্তহত্যা চালাচ্ছে।

সর্বশেষ গত সোমবার বিকেলে রাজধানীতে জুলহাজ মান্নান ও মাহবুব তনয় হত্যারও দায় স্বীকার করেছে আনসার আল ইসলাম।

 

দেশে আইএসআইএলের অস্তিত্ব নেই বলে মাস সাতেক ধরে সরকারের পক্ষ থেকে জোরের সঙ্গে বলা হচ্ছে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, এ দুই আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীর অনুসারী দুটি উগ্র গোষ্ঠী অনেকটা পাল্লা দিয়েই গুপ্তহত্যা বা নাশকতায় নেমেছে।

 

এ দেশে জঙ্গি তৎপরতার শুরু থেকে বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছেন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক নুর খান। তিনি বলেন, গত এক বছরের তৎপরতায় মনে হচ্ছে, আবার বড় কিছু ঘটাতে জঙ্গিরা প্রস্তুতি নিচ্ছে।

 

এদিকে, অবিলম্বে জুলহাজ মান্নান ও তন্ময় মাহবুবকে নৃশংসভাবে হত্যার তদন্ত দাবি করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ’

 

.........

 

‘দেশে রাজধানীসহ সর্বত্র হঠাৎ খুনোখুনিতে উৎকণ্ঠা বৃদ্ধি’ দেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে এ শিরোনামটি করেছে বাংলাদেশ প্রতিদিন।

 

অনুসন্ধানী এ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হঠাৎ করেই রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে টার্গেট কিলিং বেড়ে যাওয়ায় উৎকণ্ঠা তৈরি হয়েছে। অপরাধ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিশেষ কোনো গোষ্ঠী কোনো অসৎ উদ্দেশ্যে এগুলো ঘটাচ্ছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো অপরাধীদের চিহ্নিত করতে পারছে না। ফলে উৎকণ্ঠা আরও বাড়ছে। তাদের মতে, হঠাৎ এই খুনোখুনির মধ্যে দেশের স্থিতিশীলতা নষ্ট করার মতলব থাকতে পারে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিমিনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. জিয়া রহমানের মতে, বিশেষ উদ্দেশ্যে করা এসব অপরাধ বা খুন শুধু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে বন্ধ করা সম্ভব হবে না। এটা একটা চ্যালেঞ্জ। রাজনৈতিকভাবে এটাকে ফেস করতে হবে।

 

..........

 

ইউপি নির্বাচন নিয়ে মানবজমিনের একটি প্রতিবেদনের শিরোনাম-‘প্রশ্নবিদ্ধ নয় এখন গুলিবিদ্ধ নির্বাচন’

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন এখন প্রশ্নবিদ্ধ নয় বরং গুলিব্ধি নির্বাচনে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ড. তোফায়েল এই নির্বাচনে প্রাণহানির হাফ সেঞ্চুরি হয়েছে। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা রেকর্ড পেরিয়েছে। হতাহতের সংখ্যা ৪ হাজার অতিক্রম করেছে। এক সময় জাতীয় নির্বাচন যেমনই ছিল না কেন, কিন্তু ইউপি নির্বাচন ছিল উৎসবের। এখন সেই উৎসব মুখর পরিবেশ নষ্ট হয়ে গেছে। এর দায় শুধু নির্বাচন কমিশনকে দিলেই হবে না। সরকারেরও দায় দায়িত্ব রয়েছে। সরকার ইসিকে সহায়তা না করলে সুষ্টু নির্বাচন সম্ভব নয়।

 

……..

 

বাংলাদেশ প্রতিদিনের অর্থনীতি বিষয়ক প্রতিবেদনের শিরোনাম: দেশে বাড়ছে বেকারত্ব: ২ বছরে মাত্র ৬ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সরকারি সংস্থা বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর জরিপ অনুযায়ী ২০১৩-১৪ ও ২০১৪-১৫ দুই বছরে মাত্র ছয় লাখ মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। এতে প্রতি বছরে তিন লাখ মানুষ চাকরি বা কাজ পেয়েছে। অথচ এ সময়ে দেশের কর্মবাজারে প্রবেশ করেছে প্রায় ২৭ লাখ মানুষ। সে হিসাবে দেশে দুই বছরে বেকারের সংখ্যা বেড়েছে ৪৮ লাখ। এদিকে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা আইএলও’র প্রকাশিত জানুয়ারি-২০১৬-এর প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে বিদায়ী বছরেও (২০১৫) আগের বছরের তুলনায় বাংলাদেশে কর্মসংস্থানের হার কমেছে। চলতি বছরও কমবে। এতে বলা হয়েছে চলতি বছর বাংলাদেশে কর্মসংস্থান কমবে ৪ দশমিক ২ শতাংশ হারে।

 

.......

 

তো পাঠক! এই ছিল আজকের কথাবার্তার আসরে সর্বশেষ গুরুত্বপূর্ণ খবরের অংশ। এতক্ষণ আমাদের সাথে থাকার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ। সবাই ভালো থাকবেন।#

 

গাজী আবদুর রশীদ/২৭

 

মাধ্যম

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন