এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
রবিবার, 01 মে 2016 18:29

বাংলাদেশকে বর্তমান সরকার তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি বলে মনে করে: খালেদা জিয়া

বাংলাদেশকে বর্তমান সরকার তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি বলে মনে করে: খালেদা জিয়া

পাঠক! আমাদের প্রাত্যহিক অনুষ্ঠান কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি। আজ ১ মে রোববারের কথাবার্তার আসরের শুরুতেই বাংলাদেশ ও ভারতের গুরুত্বপূর্ণ দৈনিকের বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম। এরপর বাছাইকৃত কিছু খবরের গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

 

প্রথম আলো অনলাইন: সাড়ে ১০ লাখ কোটি টাকা আয়ের পেছনে অনেক করুণ কাহিনি

বাংলাদেশ প্রতিদিন অনলাইন: হত্যা-জঙ্গিবাদ রুখতে শ্রমিকদের আহ্বান নৌমন্ত্রীর

ইত্তেফাক অনলাইন: মানবজমিন: নার্সদের দাবি মেনে নিয়েছে সরকার

 

ভারতের খবর:

 

আনন্দবাজার: এফআইআরে ছত্রখান সোনালি সংসার

বর্তমান: আরাবুল আগে ছিল ফ্যাক্টর, এখন হয়েছে ট্রাক্টর: রেজ্জাক

সংবাদ প্রতিদিন: মিনি পাকিস্তান ইস্যুতে বিজেপিকে তোপ ফিরহাদের

 

তো, শ্রেতাবন্ধুরা! শিরোনামের পর এবার বাংলাদেশ ও ভারতের -সবচেয়ে আলোচিত খবরের গুরুত্বপূর্ণ অংশ তুলে ধরছি।

 

লন্ডনের দ্যা ইকোনোমিস্টের একটি রাজনীতি বিষয়ক বিশ্লেষণধর্মী প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে দৈনিক মানবজমিনে। তার শিরোনাম এরকম,‘হেফাজত-জামায়াতকে ঘিরে রাজনীতিতে নয়া সমীকরণ’

 

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পরিবর্তনটা হয়েছে ধীরে ধীরে। বাংলাদেশে বসে হয়তো অনেকে খেয়াল করেননি। তবে লন্ডনের দ্যা ইকোনমিস্টের চোখ এড়ায়নি। আস্তে আস্তে বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশের রাজনীতি। তৈরি হয়েছে নতুন সমীকরণ। যা বাংলাদেশের গত ৪০ বছরের রাজনীতিতে এক অনন্য ঘটনা।

 

ইসলামপন্থিদের সঙ্গে ক্রমশ দূরত্ব কমছে আওয়ামী লীগের। বিশেষকরে হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে মসনদের যোগাযোগের বিষয়টি একেবারেই স্পষ্ট। একাধিক ইস্যুতে সরকারের সর্বশেষ অবস্থানের প্রশংসা করেছে হেফাজত।

 

অন্যদিকে, জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির দূরত্ব তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি হেফাজতের একটি অনুষ্ঠানে মন্ত্রিসভার একজন সদস্য যোগ দিয়েছেন। অন্যদিকে, ব্লগারসহ বিশেষ ধরনের কিছু হত্যাকাণ্ড বাংলাদেশকে এক নতুন বাস্তবতার মুখোমুখি দাঁড় করিয়েছে। ওদিকে, গণজাগরণ মঞ্চের সঙ্গে বিশেষকরে মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারের সঙ্গে প্রকাশ্যে সরকারের দূরত্ব তৈরি হয়েছে। ভারতের ইকোনমিক টাইমস লিখেছে, বিরোধী দলের বর্জনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত ২০১৪ সালের জাতীয় নির্বাচনের মাধ্যমে নৈতিক বৈধতা হারিয়ে সরকার ক্রমশ শক্তি ও ইসলামপন্থিদের ওপর নির্ভরতা বৃদ্ধি করেছে। আপাত বাংলাদেশের রাজনৈতিক সমীকরণে বড়ধরনের পরিবর্তনের আওয়াজ পাওয়া যাচ্ছে। বদলে যাচ্ছে চিরায়ত শত্রু-মিত্রের হিসাব।

 

.....

 

সরকার উৎখাতে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি-জামায়াত গুপ্তহত্যা ঘটাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী-প্রথম আলো

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তথাকথিত আন্দোলনের নামে সরকার উৎখাতে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি-জামায়াত জোট গুপ্তহত্যা ঘটিয়ে চলেছে। আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মানুষ হত্যার পর তারা দেশে পরিকল্পিতভাবে হত্যাকাণ্ড শুরু করেছে। আর এ কারণে বিএনপি মানুষের কাছে প্রত্যাখ্যাত।

 

প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করেন, তারা (বিএনপি-জামায়াত জোট) বেছে বেছে সাধারণ মানুষকে তাদের হত্যার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছে। তারা মসজিদের ইমাম, গির্জার পাদরি, মন্দিরের পুরোহিত, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের হত্যা করে দেশকে অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। সাম্প্রতিক কিছু হত্যাকাণ্ডের ঘটনাকে ‘পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড’ বলে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন।

 

এদিকে-দৈনিক যুগান্তরের শিরোনাম আওয়ামী লীগকে মানুষ বিশ্বাস করে না : খালেদা জিয়া,

খবরটিতে বলা হয়েছে, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, তারা যত উন্নয়ন করে তার চেয়ে বেশি চুরি করে। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে তারা মনে করে পৈত্রিক সম্পত্তি। তারা বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গা দখলবাজি করছে। আওয়ামী লীগকে মানুষ বিশ্বাস করে না। এই জন্য ক্ষমতায় থেকে তারা নির্বাচন করতে চায়। মহান মে দিবস উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের সমাবেশে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন।

 

…..

 

ইত্তেফাক, মানবজমিন, যুগান্তরসহ প্রায় সব দৈনিকে প্রকাশিত খবর এবার, টাঙ্গাইলের গোপালপুরে নিখিল চন্দ্র জোয়ার্দারকে কুপিয়ে হত্যার দায় আইএসআইএল (আইএস) স্বীকার করেছে বলে দাবি করেছে সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ। টুইইটারে সাইট জানিয়েছে, হযরত মোহাম্মদ (স.) কে অবমাননা করায় নিখিলকে হত্যা করেছে আইএস। দৈনিক ইত্তেফাকসহ প্রায় সব দৈনিকে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে,শনিবার নিখিল চন্দ্র জোয়ার্দারকে হত্যা করে একদল দুর্বৃত্ত। দুই বছর আগে মহানবীকে নিয়ে কটূক্তি করায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে অপদস্থ করেছিল। পরে পুলিশ নিখিলকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায়। তিন মাস জেল-হাজতে থাকার পর জামিনে বেরিয়ে এসেছিল নিখিল।নিখিল হত্যায় দুটি মামলা হয়েছে এবং ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

...

 

আজ পহেলা মে, বিশ্বজুড়ে আজ উদযাপিত হচ্ছে মহান মে দিবস। শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের সংগ্রামের ইতিহাসে একটি তাৎপর্যপূর্ণ দিন হিসেবে পালন করা হয় পয়লা মে দিনটিকে। এ সম্পর্কে মে দিবস এবং আজকের বাস্তবতা নিয়ে অসংখ্য প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে। সেগুলো থেকে কযেকটি তুলে ধরছি।

 

মানবজমিন অনলাইন লিখেছে, মহান মে দিবসের মূল যে অর্জন বা চেতনা সেটি বাংলাদেশের ৮৫ ভাগ মানুষের কাছে পৌঁছায়নি। কারণ কৃষিকাজ, গৃহ শ্রমিক, দিনমজুরদের মত যারা অ-প্রাতিষ্ঠানিক বিভিন্ন কাজে শ্রম দিচ্ছেন, তারা সব ধরনের শ্রম আইনের বাইরে। ফলে তাদের মিলছে না কোনধরনের অধিকারই।

 

প্রথম আলো লিখেছে, ২০০৮ থেকে ২০১৫—এই আট বছরে দেশে ৪ হাজার ৩৯৯ জন শ্রমিক কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে নিহত হয়েছেন। এ সময়ে দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ১০ হাজার ৪১ জন শ্রমিক।

 

কর্মস্থলে দুর্ঘটনায় নিহত ও আহত শ্রমিকের সংখ্যা বাড়ছে। কিন্তু ২০০৬ সালে তৈরি শ্রম আইনে নিহত শ্রমিকের পরিবারের জন্য এক লাখ ও আহত শ্রমিকের জন্য ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল। এক দশকেও তা বাড়েনি।

 

দেশের বেশির ভাগ শ্রমজীবী জীবনযাত্রার ন্যূনতম চাহিদা পূরণে উপযুক্ত মজুরি পান না। বেকাররা যেমন ভালো নেই, তেমনি কর্মজীবী অনেকে যে বেতন পান, তা দিয়ে নিজের ও পরিবারের ন্যূনতম চাহিদা মেটাতে পারেন না।

 

........

 

পরিবেশ ও প্রকৃতি নিয়ে মানবজমিনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মারা পড়েছে বন্যপ্রাণী: সুন্দরবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নাশকতার আগুন ৭৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তবে নাশকতাকারীরা এবার সুন্দরবনের কয়েক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে অন্তত ২০টি স্থানে আগুন ধরিয়ে দেয়ায় অনেক উদবিড়াল, কচ্ছপ, গুঁইসাপসহ বিভিন্ন বন্যপ্রাণী পুড়ে মারা গেছে। এলাকাটি দুর্গম এবং পানির সুব্যবস্থা না থাকায় আগুন নেভাতে হিমশিম খেতে হয়েছে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিটকে।

 

সুন্দরবনে নাশকতার আগুনের ভয়াবহতা সরজমিন পরির্দশন শেষে প্রধান বন সংরক্ষক (সিসিএফ) মো. ইউনুছ আলী সাংবাদিকদের জানান, সুন্দরবনে একের পর এক পরিকল্পিত আগুনের ঘটনায় জড়িত সবাইকে আটক করতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। দুর্বৃত্তদের ধরতে অভিযান শুরু হয়েছে। সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্য সুরক্ষায় বন অধিদপ্তর জিরো টলারেন্সে থাকবে।

 

......

 

বাংলাদেশের পর ভারতের দৈনিকগুলোর নির্বাচন সম্পর্কিত খবরের চুম্বক অংশ

দৈনিক বর্তমানের খবর-বুথ দখল, ছাপ্পা ভোট, আগেভাগে ভোটারদের ভীতি প্রদর্শন, সশস্ত্র হামলা, বহিরাগত দুষ্কৃতী সমাবেশ— বাংলার ভোটের এই পরিচিত উপসর্গের সবকিছুই মজুত ছিল। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ‘সক্রিয়তায়’ কিন্তু নির্বিঘ্নেই মিটল রাজ্য বিধানসভার তিন জেলার ৫৩টি আসনের ষষ্ঠ দিনের ভোটগ্রহণ পর্ব।

 

দৈনিক সংবাদ প্রতিদিন লিখেছে, বন্দর বিধানসভা কেন্দ্রের সমীক্ষা সংক্রান্ত একটি খবর নিয়ে বিজেপি পুরোপুরি সাম্প্রদায়িক রাজনীতির তাস খেলছে বলে শনিবার মন্তব্য করেছেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

 

তো পাঠক! এই ছিল আমাদের কথাবার্তার আসরে সর্বশেষ খবরের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এতক্ষণ আমাদের সাথে থাকার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং সবাই ভালো থাকবেন।

 

গাজী আবদুর রশীদ/১

 

মাধ্যম

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন