এই ওয়েবসাইটে আর আপডেট হবে না। আমাদের নতুন সাইট Parstoday Bangla
বৃহস্পতিবার, 05 মে 2016 19:21

সংসদের বিচারপতি অপসারণের ক্ষমতা অবৈধ: হাইকোর্ট

সংসদের বিচারপতি অপসারণের ক্ষমতা অবৈধ: হাইকোর্ট

শ্রোতাবন্ধুরা! সালাম ও শুভেচ্ছা নিন। ৫ মে'র কথাবার্তার আসরে আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি আমি নাসির মাহমুদ। বাংলাদেশ এবং ভারতের প্রধান প্রধান বাংলা দৈনিকগুলোর গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো কিছুটা বিস্তারিতভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করবো আমরা।

>> প্রথম আলো: সংসদের বিচারপতি অপসারণের ক্ষমতা অবৈধ: হাইকোর্ট। এই খবরটি প্রায় সবকটি পত্রিকাতেই শিরোনাম হয়েছে। প্রথম আলোর বিস্তারিত খবরে বলা হয়েছে, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা জাতীয় সংসদের হাতে ফিরিয়ে এনে করা সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী সংবিধান পরিপন্থী বলে ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, এই সংশোধনী সংবিধানে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিত করার যে বিধান রয়েছে, তার পরিপন্থী।

বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী, বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত বিশেষ বেঞ্চ সংখ্যাগরিষ্ঠ মতে আজ বৃহস্পতিবার এ রায় দেন। রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আইনসভার কাছে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা রয়েছে। দেশের সংবিধানেও শুরুতে এই বিধান ছিল। তবে সেটি ইতিহাসের দুর্ঘটনা মাত্র। রায়ে বলা হয়, কমনওয়েলথভুক্ত রাষ্ট্রগুলোর ৬৩ শতাংশের অ্যাডহক ট্রাইব্যুনাল বা ডিসিপ্লিনারি কাউন্সিলরের মাধ্যমে বিচারপতি অপসারণের বিধান রয়েছে।*

>> এ বিষয়ে হাইকোর্টের মতামত তুলে ধরে ইত্তেফাক শিরোনাম করেছে: ‘সংসদের হাতে ক্ষমতা থাকলে বিচারকদের করুণাপ্রার্থী হতে হবে’। উচ্চ আদালতের বিচারতের অপসারণ ক্ষমতা জাতীয় সংসদের হাতে থাকলে বিচারকদের সংসদ সদস্যদের করুণাপ্রার্থী হয়ে থাকতে হবে বলে মত দিয়েছে হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার উচ্চ আদালতের বিচারকদের অপসারণ ক্ষমতা সংসদের হাতে অর্পণ সংক্রান্ত সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী সংয়বিধানের তিন অঙ্গের (নির্বাহী বিভাগ, আইন বিভাগ ও বিচার বিভাগ) ক্ষমতার পৃথকীকরণ নীতির পরিপন্থি বলে রায় দিয়েছে হাইকোর্ট।*

>> ইত্তেফাকের আরেকটি শিরোনাম: নতুন এনআইডি স্মার্ট কার্ডের জন্য লাগবে চোখের মণির ছবি দিতে হবে পাঞ্জার ছাপ

এবার উন্নতমানের জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) স্মার্টকার্ড পাওয়ার জন্য দেশের প্রায় ১০ কোটি ভোটারকে নতুন করে আঙুলের ছাপ দিতে হবে। একাজে শুধু বৃদ্ধা আঙুল ও তর্জনীর ছাপ দিলেই হবে না— দুই হাতের ১০ আঙুলের ছাপ দিতে হবে। এছাড়া আইরিশ বা চোখের মণি বা কনীনিকার ছবিও দিতে হবে। বর্তমানে আঙুলের ছাপ দিয়ে মোবাইল ফোনের সিম নিবন্ধন করতে হচ্ছে নাগরিকদের।*

>> বাংলাদেশ প্রতিদিন'র শিরোনাম: গুরুতর অসুস্থ মান্না। নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না কারাগারে আবারও গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। গতকাল তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাসপাতালে আনা হলে তার দেহে নিউমোনিয়া ধরা পড়ে। তার হার্ট অ্যানালার্জ হয়েছে। কিডনিতেও সমস্যা দেখা দিয়েছে। এ ছাড়া আগে থেকেই তার হার্টে ব্লক রয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে মান্নার সুচিকিৎসা দাবি করেছে নাগরিক ঐক্য। গতকাল দলের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়, মান্নার শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। একই সঙ্গে মান্নাকে অবিলম্বে হাসপাতালে ভর্তি করে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করার দাবি জানানো হয়।*

>> মানব জমিনে এসেছে " আইএসের দায় স্বীকারে সন্দেহের কারণ নেই: নিশা দেশাই"

বাংলাদেশে নৃশংস হত্যাকাণ্ডগুলোর দায় স্বীকার করে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) ও আল-কায়েদার বক্তব্য নিয়ে সন্দেহ প্রকাশের কোন কারণ নেই বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়াল। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। দেশাই বলেন, জুলহাজ মান্নানসহ নৃশংস হত্যাকা-গুলোর বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র ব্যথিত ও ক্ষুব্ধ। এই কথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে (আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল) জানানো হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে তিনি জানতে চেয়েছেন, জুলহাজ মান্নান মার্কিন দূতাবাসের কর্মকর্তা ছিলেন। তাকে হত্যা করাটা বাংলাদেশে বসবাসরত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের জন্য হুমকি কি না। বাংলাদেশের জঙ্গিরা ধীরে ধীরে আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে লিয়াজোঁ করছে কি না, তাও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জানতে চেয়েছেন ওই কূটনীতিক। যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মার্কিন কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন ঘটনার প্রেক্ষিতে আলকায়দা ও আইএসসহ এই ধরণের সংগঠনগুলোর দায় শিকারের বিষয়টাকে আমলে নেয়। কারণ, বিভিন্ন সময়ে স্থানীয় গ্রুপগুলোর সঙ্গে ওই সব সংগঠনের যোগসূত্র পাওয়া গেছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির অন্যতম অংশীদার যুক্তরাষ্ট্র কমিউনিটি পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রশিক্ষণে যুক্তরাষ্ট্র ভূমিকা রাখতে চায়। যুক্তরাষ্ট্রের একটি সাইবার নিরাপত্তা দল শিগগিরই বাংলাদেশে আসবে বলেও তিনি জানান।*

>> মানব জমিনের আরেকটি শিরোনাম: চূড়ান্ত রায়েও নিজামির ফাঁসি বহাল। বিস্তারিত খবরে বলা হয়েছে: একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর চূড়ান্ত রায়েও মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। আজ বেলা সাড়ে ১১টায় প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ নিজামীর রিভিউ আবেদন খারিজ করে রিভিউ খারিজের মধ্য দিয়ে নিজামীর ফাঁসির রায় বহাল থাকলো। রিভিউ খারিজের প্রতিবাদে রোববার সারা দেশে হরতাল ডেকেছে জামায়াত।*

>> ইউপি নির্বাচনে সহিংসতায় নিহত ৭১,নির্বাচনী ব্যবস্থা অনেকটাই ভেঙ্গে পড়েছে : সুজন: দেশের নির্বাচনী ব্যবস্থা অনেকটাই ভেঙ্গে পড়েছে। জাতি এক বিকৃত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন দেখল। এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে ২০১৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে শঙ্কিত হবার যথেষ্ট কারণ রয়েছে। আজ রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সুজন আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সুজন নেতৃবৃন্দ এসব মন্তব্য করেন। সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন সুজন সভাপতি এম হাফিজউদ্দীন খান। উপস্থিত ছিলেন সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার, সুজন জাতীয় কমিটির সদস্য মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর। ‘ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের হালচাল ও করণীয়’ শীর্ষক এই সংবাদ সম্মেলনে সুজন কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। *

>> নয়াদিগন্তের অপর একটি শিরোনাম: ৫ মে স্মরণে রাজধানীতে আলোচনা ও দোয়া ‘যাদের হাতে হেফাজতের রক্ত তাদের সাথে আপোস নয়’: বিস্তারিত খবরে বলা হয়েছে: হেফাজতে ইসলামের নেতারা বলেছেন, যাদের হাত ৫ মে শাপলা চত্বরে হেফাজত কর্মীদের রক্তে রঞ্জিত তাদের সাথে হেফাজতের কোনো রকমের আপোস হতে পারে না। পরিবেশ পরিস্থিতির কারণে হেফাজত এখন ধৈর্য্য ধারণ করছে। ৫ মে’র ঘটনার ব্যাপারে কথা বলতে পারছে না। মুখ বন্ধ করে রাখা হয়েছে। তবে সময়-সুযোগ মতো এ ঘটনার জবাব দেয়া হবে। ৫ মে স্মরণে আজ বৃহস্পতিবার হেফাজত ঢাকা মহানগর আয়োজিত এক আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে হেফাজত নেতারা এসব কথা বলেন।*

>> কোলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকার শিরোনাম: বাহিনী-পুলিশ আজও কড়া, শেষ দফার ভোট এখনও মানুষের দখলেই: বিস্তারিত খবরে এসেছে, শেষ দফাতেও খেল দেখাচ্ছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। দু’একটি ব্যতিক্রমী ঘটনা বাদ দিলে, রাজ্য পুলিশের ভূমিকাও এখনও পর্যন্ত ইতিবাচক। বুথে বুথে মানুষের লম্বা লাইন দেখা যাচ্ছে সকাল থেকে। যা দেখে বিরোধীরাও বলছেন, শেষ দফাতে ফের আর এক বার নিজের ভোট নিজে দিতে পারছেন বাংলার জনতা।

রাজ্যে ষষ্ঠ তথা শেষ দফার নির্বাচনে বৃহস্পতিবার পূর্ব মেদিনীপুরের ১৬টি এবং কোচবিহারের ৯টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে। বুথে বুথে তো বটেই, বুথের বাইরেও কেন্দ্রীয় বাহিনীর কড়া নজরদারি রয়েছে। মানুষের জটলা দেখলেই তা সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কোথাও কোথাও রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে চালানো হচ্ছে তল্লাশিও। লাইন ভেঙে ভোট কেন্দ্রে ঢুকতে গেলেও বাধা দিচ্ছে তারা।*

>> সংবাদ প্রতিদিনের খবর: সূর্যকান্তর অভিযোগ ভিত্তিহীন, শুভেন্দুকে ক্লিনচিট কমিশনের: পূর্ব মেদিনীপুরের সাত ওসির সঙ্গে সাংসদ শুভেন্দু অধিকারীর গোপন বৈঠক নিয়ে সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রর অভিযোগকে পুরোপুরি ভিত্তিহীন বলে জানিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন৷ জেলা প্রশাসনের রিপোর্ট উল্লেখ করে বুধবার কমিশনের তরফে শুভেন্দুকে পুরোপুরি ক্লিনচিট দেওয়া হয়েছে৷ কমিশন জানিয়েছে, "১ মে রাত ১.৪০ মিনিটে থানার ওসিদের সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর বৈঠকের কোনও তথ্য বা প্রমাণ পাওয়া যায়নি৷" তৃণমূলের দাবি, অন্য দফাগুলির মতো কমিশনের কাছে অভিযোগ জানিয়ে শেষ ভোটের আগে এবার পূর্ব মেদিনীপুরের ওসিদের সরিয়ে পুলিশ-প্রশাসনের উপর চাপ সৃষ্টির যে চেষ্টা করেছিল সিপিএম তথা জোট তা পুরোপুরি ভেস্তে গিয়েছে৷ কারণ, সূর্যকান্তর অভিযোগের পর সিপিএমের পূর্ব মেদিনীপুর জেলা সম্পাদক নিরঞ্জন সিহি এবং কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্যও দিল্লিতে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনে ই-মেল পাঠিয়ে পাঁশকুড়া কলেজে ওসিদের বৈঠক নিয়ে অভিযোগ করেন।*

>> আজকালের শিরোনাম: ছিটমহলে ভোট উৎসব: বিস্তারিত সংবাদে এসেছে,ছিটমহলে আজ ভোট উৎসব। স্বাধীনতার পর প্রথম ভোট দেওয়ার আনন্দ তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করছেন ছিটমহলের বাসিন্দারা। সকলেই নতুন পোশাক পরেছেন। রাতে অনেকেই উত্তেজনায় ভাল করে ঘুমোতে পারেননি। সকাল হতে না হতেই দলবেঁধে রাস্তায়। কোচবিহারে ৫টি বিধানসভা কেন্দ্রে তাঁরা ভোট দিচ্ছেন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশই ভোটার আছে দিনহাটা কেন্দ্রে। সংখ্যাটা ৫ হাজার ৪০০ জনেরও বেশি। ছিটমহলের মোট ভোটার ৯ হাজার ৭৭৬ জন। সকাল থেকে উৎসবের মেজাজে ভোট হচ্ছে। মহিলাদের উপস্থিতির হার নজর কেড়েছে। ভোটের মরশুমে অনন্য এক পারিবারিক মিলনের ছবি দেখল দিনহাটা কেন্দ্র।*

রেডিও তেহরান/নাসির মাহমুদ/৫

 

 

 

 

 

 

মাধ্যম

মন্তব্য লিখুন


Security code
রিফ্রেস দিন